জেনে নিন অ্যান্ড্রয়েডের ব্যাটারি লাইফটাইম নিয়ে

এখনকার স্মার্টফোন বেবহারকারীদের বেশিরভাগেরই ব্যাটারী লাইফটাইম নিয়ে অভিযোগ থাকে।ফোন কেনার দুই-তিন মাসের মধ্যেই অনেকের ব্যাটারির সমস্যা দেখা দেয়। ব্যাটারির ব্যাকআপ কমে যাওয়ার মূল কারণ আমাদের কিছু বদ অভ্যাস ও ভুল ধারণা। আজ কি কি কারণে ব্যাটারি ব্যাকআপ কমে যায় এবং কিভাবে তা থেকে মুক্তি পাওয়া যায় তা নিয়েই আলোচনা করবো।

ব্যাটারির সমস্যা সমাধানের আগে আমাদের জানতে হবে কেন সমস্যা গুলো তৈরি হচ্ছে। আমি কিছু কারণ বলছি যার জন্যেই মূলত ব্যাটারির সমস্যা দেখা যায়।
1. ফোনের সাথে দেয়া চার্জার ব্যতীত অন্য কোনো চার্জার দিয়ে ফোন চার্জ করলে ব্যাটারি ড্যামেজ হতে পারে।
2. ফোন ফুল চার্জ হওয়ার পরও চার্জে লাগিয়ে রাখলে ব্যাটারির লাইফটাইম কমে যেতে থাকে।
3. ফোন ব্যবহার করতে করতে বার বার চার্জ 0%এ নামিয়ে আনলে ব্যাটারির ক্যাপাসিটি কমতে থাকে।
4. ফোনের ব্যাক গ্রাউন্ডে সবসময় উল্টাপাল্টা এপ্লিকেশন রানিংয়ে রাখলে ব্যাটারির লাইফটাইম কমতে থাকে। যেমনঃ ফেসবুক বা মেসেঞ্জার ব্যাটারি সাকার এপ্লিকেশনের মাঝে অন্যতম।

এবার আসি এই সমস্যা সমস্যা সমাধানের উপায়ে।
1. আপনারা 80-85% এর উপরে ব্যাটারি চার্জ দিবেন না। তাহলে ব্যাটারির ম্যাক্সিমাম ক্যাপাসিটি কমতে থাকে।
2. ব্যাটারির চার্জ 14% এ নেমে এলে ফোনটি ব্যবহার বন্ধ করে দিতে হবে।
3. ফোনের সাথে দেয়া চার্জার দিয়েই ফোনটি চার্জ দিতে হবে। প্রভাইড করা চার্জার যদি হারিয়ে যায় তাহলে নতুন চার্জার কেনার সময় দেখে নিতে হবে যাতে নতুন চার্জারের কনফিগারেশন একই হয়। ব্যাটারি নষ্ট হওয়ার মূল কারণই অন্য চার্জার দিয়ে চার্জ দেয়া।
4. যাদের ফোন ফাস্ট চার্জ সাপোর্টেড তারা ফাস্ট চার্জারের পাশাপাশি সাথে দেয়া ডেটা ক্যাবলও ব্যবহার করবেন।

★তবে আপনার ব্যাটারিতে যদি সমস্যা হয়েই যায় তাহলে এই রুলস গুলো ফলো করার আগে আপনাকে আরেকটি কাজ করতেই হবে। যাকে বলা হয় ব্যাটারি কেলিব্রেশন।★
★★★ আপনাকে প্রথমেই আপনার ফোনটি ব্যবহার করে 0% চার্জে আনতে হবে। তারপর ফোনটি আবার অন করার চেষ্টা করে নিশ্চত হতে হবে কেননা ফোনের ব্যাটারিতে যদি সমস্যা থেকে থাকে তাহলে 10-15% চার্জ নিয়ে ফোনটি অন হবে!!! যদি এমন হয় তাহলে শেষ অব্দি ব্যবহার করে ফোনটি সুইচ অফ করে চার্জ দিতে হবে এবং 100% চার্জ না হওয়া পর্যন্ত ফোন অন করা যাবে না।★★★
তার পর থেকে উপরের নিয়ম গুলো অনুশীলন করলেই ব্যাটারি নিয়ে কোনো সমস্যায় পড়তে হবে না। আর ব্যাটারি 3/4 মাস পর পর কেলিব্রেশন করে নিলে আপনারকে তা দীর্ঘদিন ভালো সার্ভিস দিবে।

Comments

comments