শিখে নিন সহজ কিছু শারীরিক ব্যায়াম | Key to a Healthy Life

 

বর্তমানে খাদ্য ভেজাল, আমিষের প্রতি আসক্তি, বিনা শারীরিক পরিশ্রমের জীবিকা নির্বাহসহ আরো বিভিন্ন কারনের ফলে চর্বি-মেদ, ধীরতা, অলসতা আমাদের নিত্য দিনের সঙ্গী হয়ে গেছে। যার ফলাফল সরূপ অল্প বয়সেই ডায়াবেটিকস, হাই ব্লাড প্রেশার সহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে পরতে হয়। তখন জীবন হয়ে ওঠে দুঃর্বিসহ। এর বায়োলজিক্যাল কারন হল, White Blood cell এর সংখ্যা বৃদ্ধির অনুকূল পরিবেশ বা অনুকূল শারীরিক কসরতের অভাব। White Blood cell বা শ্বেত রক্ত কনিকা ব্যাক্তিভেদে আলাদা হয়, যাদের শারীরিক পরিশ্রম বেশী হবে, তাদের শ্বের রক্ত কণিকা সংখ্যয় বেশি হবে। এই শ্বেত রক্ত কণিকার কাজ হল দেহকে রোগ জীবাণুর হাত থেকে রক্ষা করা। অর্থাৎ দেহকে সুরক্ষা দেয়া। অর্থাৎ রোগ-জীবানু থেকে রক্ষা পেতে হলে আমাদেরকে অবশ্যই নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে।

 

আপনারা অনেকেই বডি বিল্ডিং এ আগ্রহী কিংবা বডি বানাতে ইচ্ছুক। কিন্তু কাজের চাপে প্রতিদিন সকলের জিমে যাওয়া সম্ভব হয়ে ওঠেনা। তাছাড়া সারাদিন কাজের পর, শারীরিক পরিশ্রম না করার ফলে একসময় বডি মোটা হয়ে যেতে থাকে, শরীর দূর্বল হয়ে পরতে শুরু করে। যার ফল একসময় ভয়াবহ হয়ে দাঁড়ায়। তাই বডি ফিট রাখার জন্য সবচেয়ে ভালো হয় প্রতিদিন সকালে বা সন্ধ্যায় দৌড়ালে। এতে শরীরের জড়তা কেটে যায়, রক্তপ্রবাহ সচল হয় এবং শরীরে একটি অন্যরকম ফিটনেস অনুভব করা যায়। তাছাড়া আপনি বাসাতেই কোন প্রকার যন্ত্রপাতি ছাড়াই করে নিতে পারেন কিছু ফ্রি হ্যান্ড ব্যায়াম।

 

 চলুন দেখে নেওয়া যাক, সেগুলো কি কি-

 

  • পুশ আপঃ অনেকেই বলে থাকেন যে পুশ আপের উপরে ব্যায়াম নেই। আশা করি আপনারা অনেকেই জানেন কি ভাবে পুশ আপ দিতে হয়। কিন্তু পুশ আপ আমরা অনেকেই পার্ফেক্টলি দেই না। পুশ আপের সময় আপনার খেয়াল রাখতে হবে যেন, আপনার বুক এবং দুই হাত এক লাইনে থাকে। সারা শরীর সোজা রাখার চেস্টা করুন, এবং সামনের দিকে তাকিয়ে থাকুন। এভাবে ১৫ টা করে ৩ সেট দিন। ১৫ টা না পারলে ১০ টা কিংবা ৮ টা দিন। কিন্তু মনে রাখবেন যতগুলোই দিন না কেন, পার্ফেক্টলি দিবেন। এভাবে ১ সপ্তাহ দিন, তারপর আস্তে আস্তে ২০ টা করে ৪ সেট এবং এভাবে প্রতি সপ্তাহে আগাতে থাকুন।

 

  • সিট আপঃ নিঃসন্দেহে এটি পেটের জন্য অন্যতম একটি ব্যায়াম। কিন্তু আমরা অনেকে আমাদের পা দুটোকে সোজা করে এই ব্যায়াম করে থাকি। এই পদ্ধতি টি ভূল। সিট আপের সময়, পায়ের হাটু গুলো ভাজ করে রাখা প্রয়োজন। এভাবে ১৫ টি করে ৩ সেট দিন। এবং প্রতি সপ্তাহে বাড়াতে থাকুন।

 

  • পুল আপঃ বাসায় একটি পুল আপ বারের ব্যবস্থা করুন। তাতে ডেইলি ৫-১০ টা করে ২-৩ সেট পুল আপ এবং চিন আপ দিন।

 

  • দৌড়ঃ দৌড়ানোর জায়গা না থাকলে, বাসায় যায়গায় দাঁড়িয়ে, দৌড়ানোর মতো হাত পা নাড়ুন, আশাকরি সকলেই বুঝতে পেরেছেন আমি কি বলতে চাচ্ছি।

 

  • বডি ওয়েট স্কোয়াটঃ দুই হাত সোজা করে দাড়ান, (শপথ করার মতো, কিন্তু দুই হাত একসাথে।) পায়ের আঙ্গুলের উপর ভর দিয়ে দাড়ান। এবং উঠবস করুন। ১০ টা করে ৩ সেট দিন অনেক কাজে দিবে।

 

  • স্টার জাম্পঃ লাফ দিন, এবং হাত পা চারদিকে ছড়িয়ে দিন। এভাবে ১৫ বার করে ৩ সেট দিন।

 

তাছাড়া খাওয়াদাওয়া র দিকে নজর দিন। আরেকদিন ডায়েট নিয়ে আরেকটি পোস্ট করব, ততদিন নিজের এবং নিজের বডির প্রতি খেয়াল রাখুন।

ভালো থাকবেন ধন্যবাদ।

 

Comments

comments